পটেনশিয়াল আইটি https://www.potentialit.xyz/2022/11/bdris-correction.html

(ভিডিও সহ) অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার নিয়ম ২০২৩

অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার নিয়ম প্রয়োজনীয় প্রমাণ বা ডকুমেন্ট আপলোড করে ভিডিওসহ দেখানো হয়েছে। 
অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার নিয়ম
আপনার জন্ম নিবন্ধনে সম্ভবত ভুল রয়েছে? যার ফলে আপনি অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার নিয়ম সম্পর্কে পড়ছেন। 

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন সংক্রান্ত আজকের আলোচনায় রয়েছে সমস্ত আপডেট তথ্য। এখানে জন্ম নিবন্ধন তথ্য কীভাবে সংশোধন করবেন, জন্ম নিবন্ধন সংশোধন ফরম pdf, জন্ম নিবন্ধন সংশোধন যাচাই ইত্যাদি আলোচিত হবে। 

অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার নিয়ম

অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করতে আপনার জন্ম নিবন্ধন অনলাইন হতে হবে। জন্ম নিবন্ধন সংশোধনের জন্য আবেদন করতে ভিজিট করুন- bdris.gov.bd/br/correction। এখানে জন্ম নিবন্ধনের জন্য অনুসন্ধান করুন। তারপরে সঠিক তথ্য যোগ করে এবং প্রয়োজনীয় নথি আপলোড করে আবেদন জমা দিন। প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সহ আবেদনের প্রিন্ট কপি ইউনিয়ন পরিষদ/পৌরসভা/কাউন্সিলর অফিসে জমা দিন। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ আপনাকে অনুমোদন করলে নিবন্ধনের তথ্য সংশোধন করা হবে।
সংশোধনের জন্য আবেদন করার আগে, জন্ম নিবন্ধনটি অনলাইনে আছে কিনা তা পরীক্ষা করে দেখুন। সংশোধনী আবেদন প্রক্রিয়া ধাপে ধাপে দেখানো হয়েছে।

জন্ম নিবন্ধন ওয়েবসাইটে ভিজিট করুন

প্রথমে bdris.gov.bd ওয়েবসাইট ভিজিট করুন। নিচের মত একটি মেনু এখানে দেখা যাবে। মেনু থেকে জন্ম নিবন্ধন তথ্য সংশোধন আবেদন মেনুতে ক্লিক করুন।
জন্ম নিবন্ধন আবেদন

নিবন্ধন নম্বর ও জন্ম তারিখ দিয়ে জন্ম নিবন্ধন তথ্য বের করুন

এখন বক্সে (ছবিতে দেখুন) ১৭ সংখ্যার জন্ম নিবন্ধন নম্বর লিখুন এবং জন্ম তারিখ নির্বাচন করুন। তারপর অনুসন্ধান বাটনে ক্লিক করে জন্ম নিবন্ধন তথ্য খুঁজুন। যদি আপনার রেজিস্ট্রেশন নম্বর ১৭ সংখ্যার না হয় তাহলে যে ইউনিয়ন পরিষদ, পৌরসভা বা সিটি কর্পোরেশনে জন্ম নিবন্ধন করেছেন সেখানে যোগাযোগ করে সঠিক নম্বরটি পরীক্ষা চেক করবেন। 
খুব সহজেই ১৬ সংখ্যার জন্ম নিবন্ধন ১৭ সংখ্যায় রূপান্তর করা যায়। এর জন্য একটি কৌশল অবলম্বন করতে হবে। অনুসন্ধান বোতামে ক্লিক করার পরে নিচের ছবির মত নিবন্ধন এন্ট্রি দেখতে পাবেন। এখানে নির্বাচন বাটনে ক্লিক করে কনফার্ম করুন।
Birth Certificate Correction

নিবন্ধন কার্যালয় বাছাই করুন

এই ধাপে আপনাকে নিবন্ধন অফিস (ইউনিয়ন বা পৌরসভা যেখানে আপনি জন্ম নিবন্ধন করেছেন) নির্বাচন করতে হবে। এখানে আপনার দেশ, বিভাগ, জেলা, সিটি কর্পোরেশন বা উপজেলা নির্বাচন করুন এবং পৌরসভা বা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন করুন যেখানে আপনি আপনার জন্ম নিবন্ধন করেছেন।
জন্ম নিবন্ধন কার্যালয়

জন্ম নিবন্ধন সংশোধনের তথ্য বাছাই করুন

এই ধাপে ফর্মটিতে আপনি যে তথ্যটি সংশোধন করতে চান তা সিলেক্ট করুন এবং আপনি যে সঠিক তথ্যটি চান তা লিখুন। কিভাবে সংশোধনের জন্য তথ্য যোগ করতে নিচের ছবি থেকে দেখুন। 
ধরুন আপনি বাংলা নাম সম্পাদনা করতে চান, তাহলে বিষয়ের পাশে ড্রপডাউন থেকে "নাম বাংলায়" নির্বাচন করুন। এখানে ক্লিক করে আপনি সংশোধন করতে চান এমন যেকোনো তথ্য যোগ করুন।
জন্ম নিবন্ধন সংশোধন

সংশোধিত তথ্য ও সংশোধনের কারণ দিন

নিচের ছবিটি দেখুন আমি এখানে ২টি তথ্য সংশোধনের জন্য আবেদন করছি। আবেদনের কারণ হিসাবে "ভুলভাবে রেকর্ড করা" নির্বাচন করুন। জন্ম তারিখ সংশোধনের ক্ষেত্রে আপনাকে সাধানতা অবলম্বন করে ক্যালেন্ডার থেকে আপনার জন্ম সাল, মাস এবং তারিখ নির্বাচন করতে হবে।
জন্ম নিবন্ধন সংশোধন আবেদন

ঠিকানা লিখুন

তারপর একটু নিচে স্ক্রল করুন। এখানে আপনার জন্মস্থান, স্থায়ী এবং বর্তমান ঠিকানা জেলা-উপজেলা নির্বাচন করুন। তারপরে বর্তমান জন্ম নিবন্ধনে যেভাবে দেখা যাচ্ছে ঠিক সেই ঠিকানাটি লিখুন। নিচের চিত্রটি দেখুন আপনার কোন কোন তথ্য প্রদান করতে হবে।
জন্ম নিবন্ধন তথ্য সংশোধনের আবেদন

অনলাইনে আবেদন জমা ও প্রমাণপত্র আপলোড

জন্ম নিবন্ধন সনদ সংশোধনী ফরম পূরণ করার পর আবেদনকারীকে মোবাইল নম্বর দিতে হবে। আপনি যদি নিজের জন্মনিবন্ধন সংশোধন করেন তবে নিজ নির্বাচন করবেন। অথবা, আপনার সন্তানের জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করলে অভিভাবক নির্বাচন করবেন।
পিতামাতার পরিবর্তে আপনি আইনি অভিভাবক হলে অভিভাবক নির্বাচন করুন। তবে নিজের বাবা-মা ছাড়া অন্য কেউ যেমনঃ অভিভাবক, দাদা-দাদি, ভাইবোন আবেদন করলে তাদের জন্ম নিবন্ধন নম্বর এবং জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর দিতে হবে। নিচের ছবিতে বিস্তারিত দেখে নিন।
জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন
তারপর সবুজ প্লাসযুক্ত আইকনে ক্লিক করে প্রয়োজনীয় কাগজপত্রের স্ক্যান কপি আপলোড করুন। আপনি আপনার মোবাইলে তোলা ছবিও দিতে পারেন। তবে অবশ্যই ছবিটা সোজা পরিষ্কার হতে হবে। 

তারপর পেমেন্ট অপশনে অবশ্যই ফি আদায় সিলেক্ট করুন। সবকিছু ঠিক থাকলে সাবমিট বাটনে ক্লিক করে আপনার আবেদনটি জমা দিন।

আবেদন পত্র প্রিন্ট করুন

আবেদন জমা দেওয়ার পরে আপনি একটি অ্যাপ্লিকেশন আইডি বা আবেদনের রেফারেন্স নম্বর পাবেন। এটি সংগ্রহ করে আবেদনপত্রের প্রিন্ট কপিতে লিখতে ভুলবেন না এবং আবেদনপত্র প্রিন্ট করুন। এবার আবেদন পত্রটি সংশ্লিষ্ট রেজিস্ট্রার অফিস, ইউনিয়ন পরিষদ/ পৌরসভা/ সিটি কর্পোরেশন অফিসে জমা দিতে হবে।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করতে কত টাকা লাগে

বাংলাদেশ সরকারের নীতিমালা অনুযায়ী জন্ম নিবন্ধন তথ্য সংশোধন ও পুনর্মুদ্রণের জন্য ফি নির্ধারণ করা হয়েছে। জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করতে ১০০-২০০ টাকা লাগে। জন্মনিবন্ধন সংশোধনের জন্য সরকারী ফি ৫০ এবং জন্ম তারিখ সংশোধন করতে চাইলে অতিরিক্ত ১০০ টাকা ফি প্রদান করতে হবে। তবে আপনাকে কিছু বাড়তি টাকা খরচ করতে হতে পারে যেমনঃ দোকানে আবেদন করতে, প্রিন্ট করতে ইত্যাদি। 
তবে আমি ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের অঞ্চল-৫ থেকে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করেছি।সেখানে অনেকে বাড়তি টাকা দিতে চাইলেও কর্তৃপক্ষ নেয়নি। এজন্য ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের অঞ্চল-৫ কে আন্তরিক ভাবে ধন্যবাদ।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন ফি ২০২৩

সরকারী নিয়ম অনুসারে জন্ম নিবন্ধন সনদ সংশোধন করতে কত টাকা লাগে তা নিচে বিস্তারিত দেওয়া হলঃ
সংশোধনের ধরণ দেশে বিদেশে
তথ্য সংশোধনের জন্য ফি ১০০ টাকা ২ ডলার
জন্ম তারিখ ব্যতীত নাম, পিতার নাম, মাতার নাম, ঠিকানা ইত্যাদি ও অন্যান্য তথ্য সংশোধনের জন্য ৫০ টাকা ১ ডলার
বাংলা ও ইংরেজি উভয় ভাষায় মূল সনদ বা তথ্য সংশোধনের পর সনদের কপি সরবরাহ বিনা ফিসে বিনা ফিসে
বাংলা ও ইংরেজি উভয় ভাষায় সনদের নকল সরবরাহ ৫০ টাকা ১ ডলার
জন্ম নিবন্ধন সংশোধন ফি পরবর্তীতে পরিবর্তন হতে পারে। তাই আবেদন করার পূর্বে ওয়েবসাইটে দেখে নিবেন।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধনের জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র

এবার জেনে নেওয়া যাক জন্ম নিবন্ধন সনদ সংশোধন করতে কী কী কাগজপত্র প্রয়োজন। সংশোধনের ধরণ এবং বিভিন্ন শর্তের উপর নির্ভর করে বিভিন্ন নথির প্রয়োজন হতে পারে।

জন্ম নিবন্ধন তথ্য সংশোধনের জন্য নিম্নলিখিত ডকুমেন্টগুলোর মধ্যে যেকোনো একটির প্রয়োজন হতে পারে।
পরিবর্তনের ধরণ যা যা প্রয়োজন
নাম, জন্ম তারিখ ও পিতা-মাতার নাম জাতীয় পরিচয় পত্র
শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদ
পাসপোর্টের কপি
পিতা-মাতার জন্ম নিবন্ধন বা জাতীয় পরিচয়পত্র
টিকা কার্ড/ হাসপাতালের সনদ
স্থায়ী ঠিকানা পরিবর্তন কাউন্সিলর বা চেয়ারম্যানের প্রত্যয়নপত্র
স্থায়ী ঠিকানার হালনাগাদ কর পরিশোধের রসিদ
বর্তমান ঠিকানা পরিবর্তন বিদ্যুৎ/ ইউটিলিটি বিলের কপি

জন্ম নিবন্ধন বয়স সংশোধন করার নিয়ম

জন্ম তারিখ সংশোধন বা জন্ম নিবন্ধনে বয়স সংশোধনের জন্য অনলাইনে আবেদন করতে পারেন। উপযুক্ত প্রমাণ জমা দেওয়ার ১৫ কার্য দিবসের মধ্যে আবেদন মঞ্জুর করা হয়।

জন্ম নিবন্ধনে জন্ম তারিখ সংশোধনের জন্য টিকার কার্ড, জাতীয় পরিচয়পত্র, পাসপোর্ট, ড্রাইভিং লাইসেন্স বা টিআইএন সার্টিফিকেট প্রমাণ হিসেবে জমা দিতে হবে। জন্ম তথ্য সংশোধনের শর্ত ও নিয়মাবলি সম্পর্কে নিচে আরও বিস্তারিত আলোচনা করেছি।

জন্ম নিবন্ধন নাম সংশোধন করার নিয়ম

জন্ম নিবন্ধনে নাম সংশোধনের জন্য ঘরে বসে অনলাইনে আবেদন করতে পারেন। এই ক্ষেত্রে উপযুক্ত প্রমাণ জমা দেওয়ার পরে ১৫ কার্য দিবসের মধ্যে আবেদনটি মঞ্জুর হয়।

জন্ম নিবন্ধনে নাম সংশোধনের জন্য বয়স ও অঞ্চলের উপর নির্ভর করে বিভিন্ন নথির প্রয়োজন হয়। নাম সংশোধনের জন্য সাধারণত টিকার কার্ড, জাতীয় পরিচয়পত্র, পাসপোর্ট, ড্রাইভিং লাইসেন্স বা টিন সার্টিফিকেট প্রমাণ হিসাবে জমা দিতে হবে।

জন্ম নিবন্ধনে ইংরেজি তথ্য সংযোজন

আগের জন্ম নিবন্ধন ইংরেজিতে আমাদের তথ্য অন্তর্ভুক্ত করেনি। পরবর্তীতে অনলাইন ডাটাবেজ তৈরির পর ইংরেজি তথ্য যোগ করার সুযোগ রয়েছে।

আপনারা যারা এখনো জন্ম নিবন্ধনে ইংরেজি তথ্য যোগ করেননি, তারা অনলাইনে আবেদন করে নিজে ইংরেজি তথ্য যোগ করতে পারেন।

যেকোনো ধরনের পরিবর্তন, সংযোজন এবং তথ্য অপসারণ সংশোধন হিসেবে গণ্য করা হয়। কাজেই আপনি অনলাইনে সংশোধনের আবেদন জমা দিয়ে এটি করতে পারেন।

জন্ম নিবন্ধনে পিতা/মাতার নাম সংশোধন

যদি আপনার বাবা-মায়ের জন্ম নিবন্ধন নম্বর থাকে, তাহলে তাদের জন্ম নিবন্ধন নম্বরের সাথে জন্ম নিবন্ধন তথ্য সংশোধনের জন্য আবেদন করে তাদের নাম সংশোধন করতে হবে। তারপর যদি আপনি আপনার জন্ম নিবন্ধন করার সময় আপনার পিতামাতার জন্ম নিবন্ধন নম্বর দিয়ে থাকেন তবে তাদের নাম সংশোধন করার পরে আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদ পুনরায় মুদ্রণ করলে পিতামাতার সংশোধিত নাম দেখাবে। 

যদি আপনার জন্ম নিবন্ধন করার সময় আপনার পিতামাতার জন্ম নিবন্ধন নম্বর দেওয়া না থাকে, তাহলে পিতামাতার জন্ম নিবন্ধন নম্বরটি আপনার জন্ম নিবন্ধন নম্বরের সাথে ম্যাপ করা উচিত। আপনি যদি পিতামাতার জন্ম নিবন্ধন নম্বর ম্যাপ করার পরে আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদ পুনরায় মুদ্রণ করেন, তাহলে এটি পিতামাতার সংশোধিত নাম দেখাবে।

যদি আপনার পিতামাতার জন্ম নিবন্ধন নম্বর না থাকে এবং আপনার জন্ম তারিখ 01/01/2001 এর আগে হয়, তাহলে আপনি আপনার জন্ম নিবন্ধন তথ্য সংশোধনের জন্য আবেদন করার সময় আপনার পিতামাতার নাম সংশোধন করতে পারেন। এই ক্ষেত্রে আপনার পিতামাতা মারা গেলেও তাদের মৃত্যুর কোন প্রমাণ জমা দিতে হবে না।
যদি আপনার কাছে আপনার পিতামাতার জন্ম নিবন্ধন নম্বর না থাকে এবং আপনার পিতামাতা মারা যান এবং আপনার জন্ম তারিখ 01/01/2001 এর পরে হয়, আপনি আপনার জন্ম নিবন্ধন তথ্য সংশোধনের জন্য আবেদন করার সময় আপনার পিতামাতার নাম সংশোধন করতে পারেন। এই ক্ষেত্রে আপনাকে আপনার পিতামাতার ডেথ সার্টিফিকেট জমা দিতে হবে।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন আবেদন অবস্থা

জন্ম নিবন্ধন সংশোধনের অবস্থা এখন সহজেই অনলাইনে জানতে পারবেন। এর জন্য আপনার প্রয়োজন হবে অ্যাপ্লিকেশন আইডি এবং জন্ম তারিখ। এখানে আপনি জন্ম নিবন্ধন সংশোধন যাচাই কপি পেয়ে যাবেন।
জন্ম নিবন্ধন সংশোধন আবেদন অবস্থা
জন্ম তথ্য সংশোধন আবেদনের বর্তমান অবস্থা জানতে এই লিংকে ক্লিক করুন - https://bdris.gov.bd/br/application/status এবং উপরের ছবি অনুসারে কাজ করুন। আবেদনের ধরণ নির্বাচন করুন। অ্যাপ্লিকেশন আইডি লিখুন এবং জন্ম তারিখ নির্বাচন করুন। অবশেষে "দেখুন" লেখা বাটনে চাপ দিয়ে অ্যাপ্লিকেশনের বর্তমান অবস্থা যাচাই করতে পারেন। 

জন্ম নিবন্ধন তথ্য সংশোধন সংক্রান্ত প্রশ্ন ও উত্তর

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করতে কি কি কাগজপত্র প্রয়োজন?
মূলত জন্ম নিবন্ধন সংশোধনের জন্য জাতীয় পরিচয়পত্র, শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদ, কাউন্সিলর বা চেয়ারম্যানের প্রত্যয়ন প্রয়োজন। বিশেষ ক্ষেত্রে হাসপাতাল বা ডাক্তারের সার্টিফিকেট, পিতামাতার জন্ম নিবন্ধন বা জাতীয় পরিচয়পত্র এবং হোল্ডিং ট্যাক্স রশিদ প্রয়োজন হতে পারে।

জন্ম নিবন্ধন কিভাবে সংশোধন করবেন?
জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করতে প্রথমে https://bdris.gov.bd/br/correction ভিজিট করুন। জন্ম নিবন্ধন তথ্য সংশোধন মেনুতে গিয়ে অনলাইনে আবেদন করুন। অ্যাপ্লিকেশন আইডি সংগ্রহ করুন এবং A4 আকারের কাগজে সংশোধন আবেদন ফর্মটি মুদ্রণ করুন। সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন পরিষদ, পৌরসভা বা সিটি কর্পোরেশন অফিসে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ও ফিসহ আবেদনপত্র জমা দিন।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করতে কতক্ষণ সময় লাগে?
জন্ম নিবন্ধন তথ্য সংশোধন করতে সাধারণত ১০ থেকে ১৫ কার্যদিবস লাগে।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধনী অনলাইন আবেদনের বর্তমান অবস্থা কিভাবে জানবেন?
অনলাইনে আবেদন করার পর অ্যাপ্লিকেশন আইডি এবং জন্ম তারিখ প্রদান করে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন আবেদনের অবস্থা জানতে পারবেন। এই জন্য ভিজিট করুন - https://bdris.gov.bd/br/application/status

জন্ম নিবন্ধন সংশোধনী ফরম কোথায় জমা দিতে হবে?
অনলাইনে আবেদন করার পর জন্ম নিবন্ধন তথ্য সংশোধন ফরমটি ইউনিয়ন পরিষদ, পৌরসভা বা সিটি কর্পোরেশন অফিসে জমা দিতে হবে।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করতে কত খরচ হয়?
জন্ম তারিখ ব্যতীত অন্য জন্ম নিবন্ধন তথ্য সংশোধনের জন্য ৫০ টাকা সরকারী ফি নেওয়া হয়। তবে বিদেশে অবস্থানরত বাংলাদেশীদের জন্য বাংলাদেশ মিশনে ফি ১ মার্কিন ডলার। 

জন্ম নিবন্ধন কতবার সংশোধন করা যায়?
জন্ম নিবন্ধন মোট ৪ বার সংশোধন করা যেতে পারে।

পাসপোর্ট দিয়ে কি জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করা যায়?
হ্যাঁ, সংশোধিত তথ্যের পক্ষে প্রমাণ হিসেবে পাসপোর্ট দিয়ে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করা যেতে পারে।

আমার জন্ম নিবন্ধন নামের বানান ভুল, আমি কি সঠিক বানান সহ জাতীয় পরিচয়পত্রের জন্য আবেদন করতে পারি?
না। আপনাকে প্রথমে জন্ম নিবন্ধন সনদে নামের বানান অন্য কোনো প্রমাণের বিপরীতে সংশোধন করতে হবে। তারপর জাতীয় পরিচয়পত্র করতে পারবেন।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন এর জন্য আবেদন প্রক্রিয়া

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার পুরো প্রক্রিয়া সহজে বুঝতে একটি ভিডিও যুক্ত করেছি। ভিডিওটি আপনাদেরকে অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার নিয়ম বুঝতে সাহায্য করবে বলে আশা রাখি। 

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

এখনি কমেন্ট করুন

0 জন কমেন্ট করেছেন

দয়া করে কমেন্ট নীতিমালা পড়ুন emoji

পটেনশিয়াল আইটি কী?